ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার
Home,  LAPTOP

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার – আল্টিমেট গাইডলাইন

Sharing is caring!

আসসালামু আলাইকুম! কেমন আছেন সবাই? আমি ভাল। আজ আমি আপনাদেরকে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার বিষয় কিছু বিষয় জানানোর জন্য বসেছি।

আপনার অনেকই ফ্রিল্যান্সিংকে  ক্যারিয়ার হিসেবে নিয়ে নিতে চান।

অনেকেই বলেছেন যে, ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শিখে আয় করতে চান।

আজ আমি আপনাদেরকে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার হিসেবে নিলে কেমন হবে এ বিষয়ে একটা গাইড লাইন দিব।

চলুন কথা না বাড়িয়ে শুরু করি।

 

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার গড়ার প্রথমে আপনাকে জানতে হবে যে, ফ্রিল্যান্সিং কি?

সহজ কথায় ফ্রিল্যান্সিং হল এমন একজন ব্যক্তি যিনি কোনো নির্দ্দিষ্ট  প্রতিষ্ঠানের  বা ব্যক্তির সাথে কোনো প্রকার চুক্তিবদ্ধ না হয়ে স্বাধীন ভাবে কাজ করা।

আপনি নিজের মত করে, নিজের বাসায় বসে কাজ করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার এর  পুরো বিষয়টা বুঝানোর জন্য আমি তা কত গুলো স্টেপ পার করব। আমার প্রতিটি স্টেপ ভাল ভাবে পড়বেন।

তাহলে বুঝতে পারবেন।

স্টেপ ১ঃ

কি শিখবেন ? কি শিখবেন না?  

প্রথমেই আপনাকে এই ব্যাপার টি খুব ভাল ভাবে বুঝতে হবে যে, কি শিখা উচিত আর কি শিখে উচিত না।

অনেকেই এই বিষয়ে ভুল করে থাকে, তারা ডিসিশন নিতে পারে না।

ঠিক কি তার শিখা উচিত এর কি শিখা উচিত না।

আপনি যে কাজ টি করবেন, তা হল আপনি আপউয়ার্কে যাবেন।

তারপর জব ক্যাটাগরিতে যাবেন এবং সেখন থেকে সকল ধরণের জব খোঁজে বের করবেন।

আপনি আগে ভাল ভাবে বুঝার চেষ্টা করবেন যে, আপনার কোন কাজটি করতে ভাল লাগে।

যে কাজটি করতে ভাল লাগবে বলে মনে হয়, সে কাজটি কে ফাইনাল হিসেবে বাছাই করবেন।

এখানে বেশির ভাগ মানুষ একটা ভুল করে থাকে, সেটা হলে তার সেই কাজটিকেই বাছাই করে, যে কাজে টাকা বেশি ইনকাম করা যাবে।

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার

এটা অনেক বড় ভুল ধারণা সিদ্ধান্ত।

কেননা, ধরণ আপনার ইন্টারেস্ট হল গ্রাফিক্স ডিজাইনে।

আপনি দেখলেন যে, ওয়েভ ডেভেলপমেন্টে টাকা বেশি ইনকাম করা যায়, তাই আপনি ওয়েভ ডেভেলপমেন্ট শিখা শুরু করে দিলেন।

এর দ্বারা যে কাজটি হবে, আপনি হয়ত শিখা শুরু কর দিবেন, এবং ২ বা ৩ মাস করবেন কিন্তু একটা সময় গিয়ে আর করবেন না।

আপনি হতাশ হয়ে ছেড়ে দিবেন। তাই আপনি যে কাজে ইন্টারেস্ট ফিল করেন সে কাজই শিখা শুরু করেন।

এর দ্বারা আপনরা সফলতা নিশ্চিত।

টাকা কম বেশি কোন বিষয় না।

স্টেপ ২ঃ

যা শিখবেন ভাল ভাবে শিখবেন

আমাদের অনেকের মাঝে প্রফেশনালিজম এর অনেক অভাব আছ।

আমরা নিজেদের কে এক্সপার্ট দাবি করি ঠিকই কিন্তু কাজ পারি ন।

আমি এমন অনেক কথা শুনেছি, যারা বলেন যে,  ভাই আমি এস ই ও শিখেছি কিন্তু কাজ পাচ্ছি না।

যদি বলা হয় যে, আপনি যে কাজ পারেন তার প্রমাণ কি?

তখন তার কোন প্রমাণ দিতে পারে না।

বেশির ভাগ মানুষ উত্তর দেয় যে, আমি ইউটিউব থেকে এত এত ভিডিও দেখেছি।

দুই একশত ভিডিও দেখেই নিজেকে এক্সপার্ট দাবি করে।

এই কাজ টি করা যাবে না।

কেননা এর দ্বারা আপনি ভাল ভাবে না শিখেই মার্কেট প্লেস গুলোতে যাওয়ার করানে দেশের সম্মন নষ্ট হবে।

এর দ্বারা আপনি নিজেই সমস্যায় পড়বেন।

 

স্টেপ ৩ঃ

একাউন্ট খোলা 

এই ধাপে আপনাকে একাউন্ট খোলতে হবে।

অনেকেই এই ধাপেও  ভুল করে থাকেন। কেননা তারা অনলাইনে কাজ শিখার শুরু করার প্রথমেই একউন্ট খোলার জন্য ব্যস্ত হয়ে যায়।

অনেকেই এই বিষয়ে  পরামর্শ চায়।

আমি আপনাকে বলব যে, আপনি প্রথেম কাজের প্রতি গুরুত্ব দেন। তারপার যে কোন একটা মার্কেটপ্লেসে গিয়ে একাউন্ট খোলবেন।

বর্তমান সময়ে সব চাইতে ভাল মার্কেটপ্লেস হল আপউয়ার্ক।

তবে বাংলাদেশ থেকে এই মার্কেটপ্লেসে কাজ করার জন্য একউন্ট খোলা যায় না। এর জন্য অনেক টেকনিক খাটাতে হবে।

তাছাড়া আমি এখানে একটা লিস্ট দিলাম, আপনি যে কোন জায়গায় একাউন্ট খোলতে পারেন।

  1. Upwork

  2. Toptal

  3. Freelancer

  4. Guru

  5. 99designs

 

4 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares